প্রত্যন্ত দূর্গম এলাকায় রান্নাকরা খাওয়ার দিয়ে চলছেন তৃণমূল আহ্বায়ক

0
55

মালবাজার: মাল ব্লকের বিভিন্ন গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় বেশ কিছু প্রত্যন্ত দূর্গম গ্রাম আছে। কয়েকটি কালিম্পং জেলার পাহাড় সংলগ্ন। যাতায়াত ব্যবস্থা এখনো উন্নত নয়। নদী পেরিয়ে যেতে হয়। এই এক প্রত্যন্ত দুর্গম গ্রাম বাগরাকোট গ্রাম পঞ্চায়েতের অধীনে সুন্দরী বস্তি। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্য হয়তো নাম সুন্দরী বস্তি।

এই রকম এক প্রত্যন্ত বস্তিতে প্রায় ৫০০ পরিবারের বাস। এই রকম এক দূর্গম বস্তিতে লকডাউনের জন্য সমস্যা পড়েছিল। এই বস্তিতে রান্না করা খাওয়ার খাওয়ালেন মাল ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের অন্যতম আহ্বায়ক তপন মিত্র। রান্নার মেনুতে ছিল ভাত, ডাল, সবজি ডিমের ক্যারি। প্রায় ৮৫০ জন গ্রামবাসীকে রান্না করা খাওয়ার পরিবেশন করে খাওয়ানো হয়।

এক বেলার আহার পেয়ে বস্তিবাসীরা খুশি। তাদের কথায়, লকডাউনের কারনে আমাদের রোজগার বন্ধ। বাইরে যেতে সমস্যা হচ্ছে। একবেলার আহার অনেক দামী। লকডাউন ঘোষণার পর থেকে তপনবাবু প্রায় প্রতিদিন এইরকম ভাবে প্রত্যন্ত গ্রাম ও বস্তিতে রান্নাকরা খাওয়ার দিয়ে চলছেন।তপনবাবু বলেন, এইসব প্রত্যন্ত এলাকা থেকে বাইরে যাওয়া খুবই সমস্যাজনক। বস্তিতে কাজকর্ম নেই। মানুষ সমস্যায় আছে।

সরকারি বা বেসরকারি ত্রান এসব জায়গায় ঠিকমতো পৌঁছাতে পারেনা। তাই আমরা প্রত্যন্ত এইসব গ্রামে রান্নাকরা খাওয়ার দেওয়ার সিদ্বান্ত নিয়েছি। গত কয়েকদিন ধরে অন্যান্য এলাকায় দিয়েছি। আজ এখানে দিলাম। ৮৫০ জনের এক বেলার আহার দিতে পেরেছি। এদিন তপনবাবুর সাথে আনোয়ার হোসেন, সন্দিপ সেন, সাম্য মিত্র প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here