লকডাউনের সময় পশ্চিমবঙ্গে শুরু হচ্ছে ঘরে বসেই লাইভ ‘স্টে হোম ক্যারাম চ্যালেঞ্জ’

0
144

শিলিগুড়ি: সারা দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। মনে করা হচ্ছে আরও হয়ত আরো লম্বিত হবে এই লকডাউনের সময়। কেন্দ্র-রাজ্য তথা স্বাস্থ্যমন্ত্রক ইতিমধ্যেই লকডাউন লম্বিত করার ক্ষেত্রে বিভিন্ন মতামত নিয়ে চলার কথা ভাবছে। এখন পর্যন্ত এই লকডাউনের ১৪ দিন কেটে গেছে সারা ভারতে। মানুষ বন্দি রয়েছে ঘরে। সোশাল মিডিয়ায় চোখ বোলালেই দেখা যাবে মানুষ অনেক অভিনব কায়দায় এই লকডাউন সময় কাটানোর পন্থা নিয়েছে। খেলাধুলার খেত্রেও এই প্রভাব পড়েছে।

বহিঃস্থ ক্রীড়ার বদলে অন্তঃস্থ ক্রীড়াগুলি অনেক বেশি প্রাধান্য পাচ্ছে এবং জনপ্রিয় হচ্ছে। এর মধ্যে একটি অন্তঃস্থ ক্রীড়া রয়েছে যার নাম ক্যারাম। সোশাল মিডিয়ার দেখা যাচ্ছে মানুষ ক্যারম খেলছে, সেই ছবি সোশাল মিডিয়াতে আপলোড করছে ইত্যাদি। তবে এর মধ্যে ফের বদল ঘটালো দিল্লীর অজয় শ্রীবাস্তব। অজয় নিজেও একজন পেশাদার ক্যারাম খেলোয়ার। অজয় ঘরে বসে ক্যারম খেলার একটা নতুন প্রকরণ তৈরি করে যা ইতিমধ্যেই জনপ্রিয়তা লাভ করে ফেলেছে।

এই বিশেষ ক্যারাম প্রতিযোগিতার নাম হল ‘স্টে হোম ক্যারম চ্যালেঞ্জ’। এই প্রতিযোগিতা আয়োজন করা হয় ভারতে প্রথমবার গত ২রা এপ্রিল ২০২০। মূলত বাড়িতে বসে এই ক্যারাম একাই খেলতে হবে তবে ফেসবুক লাইভ অন করে। এই ফেসবুক লাইভটা রিডাইরেক্ট করতে হবে একটা নির্দিষ্ট ফেসবুক গ্রুপে যেখানে রয়েছে প্রতিযোগিতা আয়োজকের আম্পায়ার, অপর পক্ষের খেলোয়ার এবং বাকি গ্রুপ মেম্বেরা, যারা দর্শক হিসেবে থাকছে।

যে খেলোয়ার সব চেয়ে তাড়াতাড়ি নিজের সব কয়েন ফেলে দিতে পারবে তাকেই বিজয়ী ঘোষণা করা হবে। এছারা আরও বেশ কিছু টেকনিক্যাল নিয়ম রয়েছে যা মেনে চলতে হবে খেলোয়ারদের খেলা চলাকালীন। শিলিগুড়ির জাতীয় ক্যারাম খেলোয়ার শ্রী দুর্জয় ঘোষ নিউজ বৃত্তান্ত কে জানায় এই ফরম্যাটে ক্যারাম শুরু বিদেশে তবে দেশীয় ভাবে শুরু করা হয় দিল্লী থেকে। প্রথম এডিশন স্টে হোম ক্যারম চ্যালেঞ্জ ২০২০ তে অংশ নেন দুর্জয়। তিনি গতকাল রানার্স আপ হন।

এখানেই শেষ নয় এই ক্যারাম চ্যালেঞ্জ। পশ্চিমবঙ্গেও এই ক্যারাম চ্যালেঞ্জ শুরু হচ্ছে আগামীকাল থেকে যা পরিচালনা করছে হুগলী জেলায় উত্তরপাড়ার প্লুটো ক্যারাম অ্যাকাডেমী। এই খেলাও ১৬ জন খেলোয়ার রয়েছে যারা পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলার সুপ্রতিষ্ঠিত পেশাদার ক্যারম খেলোয়াড় যেমন শিলিগুড়ির দুর্জয় ঘোষ এবং সোনু চক্রবর্তী, পুরুলিয়ার ভি. রুপেশ রাও এবং বিশ্বজিত ভগত, হুগলীর শুভ সরকার, দ্বীপ ঠাকুর এবং পার্থ দে, বীরভূমের আবুল হাসনাদ, হাওড়ার অসীম পাল প্রমুখ।

আগামী ১৪ই এপ্রিল ২০২০ পর্যন্ত চলবে এই ক্যারম। ইতিমধ্যেই প্রচুর মানুষ এই নির্দিষ্ট ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করতে শুরু করেছে। শিলিগুড়ির অংশগ্রহণকারী খেলোয়ার শ্রী দুর্জয় ঘোষ জানান – এই অনলাইন ক্যারাম যদিও এখনো কোন স্বীকৃত প্রতিযোগিতা নয় তবে মনে করা হচ্ছে এই লকডাউনের পরে যেমন বিভিন্ন ক্ষেত্রে যেমন পরিবর্তন অনুমান করা যাচ্ছে ঠিক তেমন এই অনলাইন ক্যারামও হয়ত এক সঠিক পথের দিশা পেয়ে যাবে। ততদিন লকডাউনে হয়ত অনেকেই এই নতুন ক্যারাম প্রতিযোগিতার আনন্দ উপভোগ করতে পারবে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here