শাটডাউনের দ্বিতীয় দিনেই কালোবাজারির অভিযোগ এলাকাজুড়ে, আতঙ্কিত এলাকাবাসী

0
1

ইসলামপুর: সাট ডাউনের দ্বিতীয় দিন থেকে বাজারে তীব্র কালোবাজারী শুরু হয়ে গেল। একাধিক সবজির দাম হয়ে গেল দ্বিগুণ কিংবা তার কাছাকাছি।কুড়ি টাকার টমেটো বিক্রি হচ্ছে তিরিশ টাকায়।কুমড়ো প্রতি কেজি চল্লিশ টাকা। শুধু তাই নয়, সবজি থেকে  শুরু করে মুদিখানার সামগ্রীর দাম ক্রমশ উর্ধমুখী। এমনটা দেখলেই ইসলামপুর এর বিভিন্ন এলাকার  বাসিন্দারা সংশ্লিষ্ট বিষয় ভিডিও করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করার পাশাপাশি থানায় জমা দেবেন বলেও জানিয়েছেন।

মানুষ যখন একটু খাবারের জন্য উদ্বেগ নিয়ে বসে আছেন, কোনরকমে দিন কাটছে তাদের; সেই মুহূর্তে বিভিন্ন জিনিসের দাম দ্বিগুন এর কাছাকাছি হয়ে যাওয়ায়   সংকটে এলাকাবাসী। এরকম চলতে থাকলে সমস্যা ক্রমশ প্রকট হয়ে উঠবে বলে মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল। এক্ষেত্রে অনেক দোকানদারই যোগান কম বলে পণ্য দ্রব্যের দাম বেশি চাইছে বলেও স্থানীয় সূত্রে প্রকাশ। সমাজকর্মী মৌনব্রত সরকার জানান, আমরাও খোঁজখবর রাখছি।

কোথাও এমন কালোবাজারি দেখতে পেলেই আমরা রুখে দাঁড়াবো। সে বিষয়ে এবং প্রয়োজনে ভিডিও করে থানায় জমা দেবো এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে মানুষকে সচেতন করব। এর বিরূদ্ধে সবাইকেই প্রতিবাদী হওয়া উচিত বলেও তিনি মনে করছেন। গোয়ালপুকুর এক ব্লকের নন্দঝার এলাকার জনৈক ফল বিক্রেতা এবং মুদিখানার দোকানদার কালোবাজারি করছে বলেও অভিযোগ উঠেছে এলাকার বাসিন্দাদের তরফে।

ইসলামপুর মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশন এর মুখপাত্র দামোদর আগারওল জানান, কোনোভাবেই কালোবাজারি মেনে নেওয়া যাবে না ।কোন অভিযোগ পেলে তা সরাসরি পুলিশের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হবে এবং সেই ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থাও নেওয়া হবে। যদিও ইতিমধ্যে প্রত্যেক ব্যবসায়ীকে বলা হয়েছে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সচেতন থাকার জন্য। ইসলামপুর পুলিশ জেলার পুলিশ সুপার শচীন মাক্কার জানিয়েছেন, কেউ কালোবাজারি করেছে এমন অভিযোগ পেলে তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যদিও তাদের পুলিশের টিম কালোবাজারি রুখতে ইতিমধ্যেই অভিযানে নেমেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here