জাতীয় স্তরের ক্যারাটে প্রতিযোগিতায় স্বর্ণপদক আনলো রায়গঞ্জের প্রতিযোগীরা

0
118

কৌশিক চট্টোপাধ্যায়, রায়গঞ্জঃ সারা দেশের একাধিক রাজ্যকে পেছনে ফেলে গ্রুপ ভিত্তিক ক্যারাটে প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থানে উঠে এলো পশ্চিমবঙ্গের নাম। পাশাপাশি জানা গিয়েছে, এরাজ্যের ১৭ জন অংশগ্রহণকারী মধ্যে উত্তর দিনাজপুর তথা রায়গঞ্জের বাসিন্দা ছিলেন ৫ জন প্রতিযোগী।

উত্তর দিনাজপুর স্পোর্টস ক্যারাটে অ্যাকাডেমির প্রশিক্ষক শিবু কর্মকার জানালেন, “চলতি মাসের ৭ তারিখ থেকে ৯ তারিখ পর্যন্ত অন্ধ্রের বিশাখাপত্তনমে স্বর্ণ ভারতী ইন্ডোর স্টেডিয়ামে “নিজি সোতোকান ন্যাশানাল ওপেন ক্যারাটে চ্যাম্পিয়ন শিপ ২০২০” অনুষ্ঠিত হয়। সেই প্রতিযোগিতায় ক্যারাটের বিভিন্ন স্টাইলের গোটা দেশের ১৪ টি রাজ্যের প্রায় ১৪০০ প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করেছিলো।

তার মধ্যে এরাজ্যের অংশগ্রহণকারীরা গ্রুপ ভিত্তিক প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান অধিকার করেছে। প্রতিযোগিতায় প্রথম অন্ধ্রপ্রদেশ এবং দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে তেলেঙ্গানার ক্যারাটে গ্রুপ।” তিনি আরও জানান,” রাজ্যের ১৭ জনের গ্রুপের মধ্যে ৫ জনই রায়গঞ্জের বাসিন্দা। এদের মধ্যে – তৃষা রায় (৬) একটি সোনা, একটি রূপা ও একটি ব্রোঞ্জের পদক পেয়েছে।

অন্যদিকে তনিমা দাস (৮) একটি সোনা ও একটি ব্রোঞ্জ পদক, সৌরভ রায় (১১) দুটি সোনা, সায়ন্তী ঘোষ (১২) একটি রূপা ও একটি ব্রোঞ্জ পদক, মামন রায় (২৬) দুটি সোনা ও একটি রূপার পদক পেয়েছে। পাঁচজন বিজয়ী প্রতিযোগীকে আগামী রবিবার সংস্থার পক্ষ থেকে সম্বর্ধনা দেওয়া হবে বলে জানান স্পোর্টস ক্যারাটে অ্যাকাডেমির প্রশিক্ষক শিবু কর্মকার। তিনি বলেন “

বর্তমানে রায়গঞ্জের বিদ্যাচক্র স্কুল এবং করনেশন স্কুলে এই প্রশিক্ষণ চলছে। রায়গঞ্জ টাউনক্লাব কর্তৃপক্ষ এব্যাপারে যথেষ্ট সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। “রায়গঞ্জ টাউনক্লাব ময়দানের ক্রীড়া সম্পাদক অভিজিৎ ঘোষ জানালেন,” রায়গঞ্জ শহরের ক্রীড়া চর্চার উন্নয়নের জন্য রায়গঞ্জ ইন্সটিটিউট এবং  টাউনক্লাব কর্তৃপক্ষ যথেষ্ট উদ্যোগী হয়েছে।

ফুটবল, টেবিল টেনিসের পাশাপাশি ক্যারাটে প্রশিক্ষণের প্রতি যথেষ্ট গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। সেল্ফ ডিফেন্সের জন্য মহিলাদের ক্যারাটে প্রশিক্ষণ ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। সেইকারনে ক্যারাটে প্রশিক্ষণের প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। ” কেন্দ্রীয় স্তরে এই সাফল্য জেলার ছাত্রছাত্রী এবং ক্রীড়া প্রেমীদের আরও উৎসাহিত করবে বলে মনে করেন অভিজিৎ বাবু।

জেলা ক্রীড়া সংস্থার সম্পাদক সুদীপ বিশ্বাস বলেন, জেলার একজন ক্রীড়া প্রেমিক হিসেবে কেন্দ্রীয় স্তরে ক্যারাটে প্রতিযোগিতায় এই সাফল্যের খবর পাওয়া মাত্রই প্রতিযোগীদের অভিনন্দন জানানো হয়েছে। কেন্দ্রীয় স্তরে এই ধরনের  প্রতিযোগিতায় জেলার মুখ উজ্বল করার জন্য এই পাঁচ ক্যারাটে প্রতিযোগীদের ধন্যবাদ জানান তিনি। পাশাপাশি সুদীপ বাবু বলেন, জেলার বিদ্যালয় গুলিতে  ছাত্রীদের সেল্ফ ডিফেন্স বা আত্মরক্ষার জন্য এই ক্যারাটে প্রশিক্ষণ এবং অন্যান্য খেলার ক্লাস বৃদ্ধি করার ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক এবং খেলার শিক্ষকদের বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া উচিত।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here