করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে বাংলাদেশজুড়ে বিক্রি বাড়ছে মাস্কের

0
50

হাবিবুর রহমান, ঢাকাঃ চীনে নভেল করোনাভাইরাসের খবরে বাংলােদেশে মানুষের মাঝে হঠাৎ বেড়ে গেছে মাস্কের ব্যবহার। সেই সুযোগে সংকটের কথা বলে কৃত্রিম সংকট তৈরি করে বাড়ানো হয়েছে মাউথ মাস্ক ও অ্যান্টি ডাস্ট মাস্কের দাম। সর্বনিম্ন ২০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১৭৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে মাস্ক। রাস্তায়, ফুটপাতে, বিভিন্ন অনলাইন শপে মাস্ক বিক্রি হলেও ফার্মেসিগুলোতে মাস্কের সংকট দেখা দিয়েছে।

সম্প্রতি করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্বজুড়ে মাস্কের ব্যবহার বেড়েছে। গবেষকরা বলছেন, করোনা ভাইরাসের আকার ১৩৫ ন্যানো, যা ভালোমানের মাস্ক ব্যবহারের মাধ্যমে প্রতিরোধ করা যায়। এ কারণে বাংলাদেশেও বেড়েছে এর চাহিদা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, ডিস্পোজেবল নন ওভেন ফ্যাব্রিক মাস্ক বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকায়, কটন মাস্ক ১২০ টাকা, স্পঞ্জ অ্যান্টি ডাস্ট মাস্ক ৫০ টাকা, এন-৯৫ (৮২১০) মাস্ক ২৫০ টাকা, এন-৯৫ (৮১১০এস) ১৮০ টাকা, পিএম-২.৫ মাউথ মাস্ক ১২০ টাকা, সাওমি এয়ারপপ থ্রি-সিক্সটি ডিগ্রি অ্যান্টি ফগ মাস্ক ৩৫০ টাকা, সাওমি স্মার্টলি ফিল্টার মাস্ক ৪৫০ টাকা এবং সাওমি পিএম-২.৫ লাইট ওয়েট মাস্ক বিক্রি হচ্ছে ১৭৫০ টাকা।

১৭৫০ টাকার সর্বোচ্চ দামের মাস্কটি বিক্রি করছে বিডি শপ ডট কম নামের একটি অনলাইন শপ। এদিকে আগে ফুটপাতে বা বাসে হকাররা কাপড়ের যেসব মাস্ক ৫ থেকে ১০ টাকায় বিক্রি করতো এগুলো বর্তমানে ২০ থেকে ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে ফার্মেসি বিক্রেতারা বলছেন, এগুলো মাস্ক নিম্নমানের, এসবে দূষিত বাতাস ফিল্টার হয় না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here