হাতির করিডরেই পুকুর বানিয়ে চা বাগানে জল সেচ, প্রশাসন উদাসীন

0
27

মালবাজারঃ হাতির করিডরেই স্বাভাবিক ঝোড়াকে আটকে পুকুর বানিয়ে চা-বাগানে জল সেচ চলছে। ঘটনাটি ঘটেছে ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কের পাশে ডামডিম ও ওদলাবাড়ির মাঝে রানীচেরা চা বাগানে। এতে পরিবেশ প্রেমীরা উদ্বিগ্ন হলেও প্রশাসন বা সেচ দপ্তরের পক্ষ থেকে সেরকম পদক্ষেপ নেওয়ার নজির পাওয়া যায়নি।

ডুয়ার্সের ডামডিম ও ওদলাবাড়ির মাঝে ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কের প্রায় ৫ কিমি দৈর্ঘ বরাবর রয়েছে রানীচেরা চাবাগানের আবাদি এলাকা। এই এলাকা দিয়ে বয়ে গেছে কালিখোলা, তক্তি ঝোড়া সহ আরও কয়েকটি স্বাভাবিক ঝোড়া। এই ঝোড়াগুলির বৈশিষ্ট্য হলো সারা বছর কম বেশি জল থাকে। নিচের গ্রাম ও বনাঞ্চলের জলের উৎস এই ঝোড়াগুলি।

এই অঞ্চল দিয়ে প্রায় প্রতিদিন হাতির দল যাতায়াত করে। কিছু দিন আগে একটি হাতি এই এলাকায় আটকে পড়ে। এহেন এক জায়গায় এই রকম কান্ড দেখে উদ্বিগ্ন পরিবেশ প্রেমী নফসর আলি। তিনি বলেন, এই এলাকা বহু পুরনো হাতির করিডর বলে চিহ্নিত। কিছুদিন আগে দিনভর এখানে হাতির দল আটকে ছিল। এখানে ঝোড়া আটকে গভীর কৃত্রিম পুকুর বানিয়ে চা-বাগান জল সেচ চালাচ্ছে।

হাতির শাবক এই জলে পড়লে সমস্যা হবে। প্রশাসনের বিষয়টি দেখা উচিত। এসব বন্ধ করতে বনমন্ত্রী নিজে নির্দেশিকা জারি করতে বলেছেন। তবু চলছে।  জাতীয় সড়কের পাশে এই ঘটনা নিয়ে জানতে চাওয়া হলে জাতীয় সড়ক দপ্তরের এক বাস্তুকার বলেন, বিষয়টি সিভিল প্রশাসনের দেখা উচিত। তবু যদি ব্রিজের পাশে হয়ে থাকে তবে অবশ্যই ব্যবস্থা নেব। একই রকম বক্তব্য সেচ দপ্তরের।  তবে অনেক সরকারি আধিকারিক এটা বেআইনি বলে মেনে নিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here