বিয়ের কার্ড সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করলেন দেব

0
50

দেবলীনা ব্যানার্জী : লাল রঙের একটা বিয়ের কার্ড সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করলেন অভিনেতা দেব। তবে ঠিক কার্ড না বলে কার্ডের সামনেটা বলাই ভাল। কারণ ভিতরে কি আছে তা ওই ছবি থেকে জানা যায়নি। যেটুকু  পরিস্কার তাতে বোঝা যাচ্ছে যে এটা একটা বিয়ের কার্ড। কার বিয়ে? না সেকথা পরিস্কার করা হয়নি। তবে সাংসদ তথা বাংলা সিনেমা জগতের জনপ্রিয় তারকা দেব যখন পোস্ট করেছেন তখন বিয়ে হয়তো তাঁরই।

টুকটুকে লাল কার্ডের ওপর ঝলমল করছে সোনালি রঙের লেখা- “শ্রী শ্রী প্রজাপতয়ে নমঃ”। রয়েছে স্বস্তিক চিহ্নও। আর তার নিচে বড় বড় করে লেখা ‘শুভবিবাহ’। কার্ডে পালকি-প্রজাপতি সবই রয়েছে। এমন চিরাচরিত একটি বিয়ের কার্ডের ছবি শেয়ার করেই দেব টুইট করেছেন, “কেউ ফাঁস করার আগেই দিয়ে দিলাম। আশা করি, আপনাদের আশীর্বাদ থাকবে।”

 

এরপরই টলিপাড়াসহ দেবের অনুরাগীমহলে শুরু হয় জল্পনা। অনেকে শুভেচ্ছা জানাতে শুরু করেন অভিনেতাকে।কিন্তু পাত্রী কে? না সেকথাও পরিস্কার করা নেই কার্ডে। তবে রুক্মিণীর সঙ্গে দেবের প্রেমের কথা অনেকেরই জানা। তাহলে কি রুক্মিণীর সঙ্গেই বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন দেব? কিন্তু অনেকেরই মনে সংশয় দেখা দেয়, এটি কোনও নতুন ছবির প্রোমোশন নয় তো!

এর আগেও একবার লোকসভা ভোটের সময় দেব ব্যস্ত থাকায় রুক্মিণী মৈত্র টুইট করে প্রকাশ্যে ‘ভালোবাসি তোমাকে’ বলেছিলেন। কিন্তু পরে জানা যায় ওটা ‘কিডন্যাপ’ ছবির গান। সমস্ত কৌতূহলের নিরসন দেব নিজেই করলেন একদিন পর। জানা গেল,  বিয়ের পিঁড়িতে মোটেই বসছেন না দেব-রুক্মিণী। এটিও দেব রুক্মিণীর নতুন ছবি ‘টনিক’-এর প্রোমোশন। দেব নিজেই সোশ্যাল মিডিয়ায় জানালেনএই খবর।

লিখলেন, “ক্ষমা চাইছি ভুল খবর দিয়ে। আসলে ওটা টনিকের কাকার বিয়ে।” বিয়ের দিনও প্রকাশ করেছেন অভিনেতা। দিনটি ৮ মে। বিয়ের পাত্র ও পাত্রী দেব-রুক্মিণী নন, পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায় ও শকুন্তলা বড়ুয়া। ছবিটি প্রযোজনা করছে দেব এন্টারটেনমেন্ট।  ছবির পরিচালক অভিজিৎ সেন। সংগীত পরিচালনার দায়িত্ব জিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের কাঁধে। আসলে পুরোটাই দেবের উর্বর মস্তিষ্কের খেলা। নিজের বিয়ের ইঙ্গিত দিয়ে আগামী ছবির জোরদার প্রচার শুরু করলেন অভিনেতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here