বিজেপি কর্মীর মৃত্যুতে বিক্ষোভ কোচবিহারে

0
29

সুমন মণ্ডল, কোচবিহার : বিচারাধীন বিজেপি কর্মীর মৃত্যুকে ঘিরে ব্যাপক আলোড়ন ছড়িয়ে পড়ল।  কোচবিহার মেডিকেল কলেজ কলেজ ও হাসপাতালে  সোমবার  সকালে    চিকিৎসাধীন  ওই বিজেপি কর্মীর মৃত্যু হয়।  তার নাম রামপ্রসাদ  বারুই (৬৫) বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে। তার বাড়ি দিনহাটা থানার গোসানিমারী দুই গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার খালিশা গোসানিমারিতে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

এই ঘটনায় বিজেপি দলের পক্ষ থেকে পুলিশের বিরুদ্ধে তাদের দলীয় কর্মীকে মারধরের অভিযোগ তোলা হয়েছে। যার ফলে তার মৃত্যু হয়েছে বলেও বিজেপির কোচবিহার জেলা সহ-সভাপতি ব্রজগোবিন্দ জানান। পুলিশ সূত্রে অবশ্য জানা গেছে জেল হেফাজতে থাকাকালীন ওই ব্যক্তি অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাকে প্রথমে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে পরবর্তীতে কোচবিহারের স্থানান্তরিত করা হয়। এদিন সকালে তার মৃত্যু হয়।

এই ঘটনায় বিজেপি দলের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে পুলিশ প্রশাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু হয়েছে।যতক্ষণ পর্যন্ত ঘটনার উপযুক্ত তদন্ত না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত তারা আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দেন। এদিকে   জানা গিয়েছে, গত ৩০  শে ডিসেম্বর কোচবিহার জেলা বইমেলা থেকে ফেরার পথে গোসানিমারি বাজারে  তৃণমূল বিধায়ক জগদীশচন্দ্র বর্মা বসুনিয়ার ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। বিধায়কের উপর হামলার ঘটনায় অভিযোগের তীর যায়  বিজেপির বিরুদ্ধে।

হামলার ঘটনায় তৃণমূলের পক্ষ থেকে পুলিশের কাছে অভিযোগের ভিত্তিতে পরদিন রামপ্রসাদ বারুই  সহ  ছয়  জন বিজেপি কর্মীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরদিন আদালতে তোলা হলে তাদের জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ  দেয় আদালত। কিন্তু গত ৯ জানুয়ারি রামপ্রসাদ  বারুই অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতাল ভর্তি করা হয় কিন্তু অবস্থার অবনতি হওয়ায় ১১  জানুয়ারি তাকে স্থানান্তরের নির্দেশ দেন চিকিৎসক। অসুস্থ বিজেপি কর্মীকে ১২  জানুয়ারি  কোচবিহার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সোমবার ভোরে  সেখানে তার মৃত্যু হয়। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে  ওই ব্যক্তি গ্যাসের সমস্যা নিয়ে  অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে সেদিনই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

জেল হেফাজতে থাকা কর্মীর মৃত্যু সম্পর্কে বিজেপির কোচবিহার জেলা সভাপতি মালতি রাভা, সহ-সভাপতি ব্রজগোবিন্দ বর্মণ বলেন, মিথ্যা অভিযোগ এনে নিজেদের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব কে চাপা দিতে দলের ছয় কর্মীকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে নিয়ে আসে। তাদের মধ্যে রামপ্রসাদ বারুই  নামে এক কর্মীর কোচবিহারের মেডিক্যাল কলেজে মৃত্যু হয়।বিধায়ক জগদীশ চন্দ্র বর্মা বসুনিয়ার গাড়ি ভাংচুরের ঘটনায় নির্দোষ  রামপ্রসাদ বারুইকে প্রথমেই তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা খালিশা গোসানিমারি তে তার বাড়িতে গিয়ে তাকে মারধর করে বলে অভিযোগ। পরে  মিথ্যা অভিযোগে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে নিয়ে গিয়ে থানার লকআপে মারধর করে বলেও বিজেপি নেতৃত্ব অভিযোগ তোলেন। যার ফলেই ওই বিজেপি কর্মী অসুস্থ হয়ে পড়লে তার মৃত্যু হয়। ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বিজেপি নেতৃত্ব সরব হয়।

দলের কোচবিহার জেলা সম্পাদক সুদেব কর্মকার জানান গোসানিমারি তে বিধায়কের উপর হামলার ঘটনায় তাদের ছয়  জন কর্মী সমর্থককে মিথ্যা অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে। পাশাপাশি তিনি বলেন তৃণমূল নিজেদের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব কে বিজেপির ঘাড়ে চাপিয়ে দেওয়ার জন্য তাদের কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়।  পুলিশ  রাজ্যের শাসক দলের অঙ্গুলি হেলনে তাদের কর্মীদের গ্রেফতার করে। ঘটনায় ম্যাজিস্ট্রেট পর্যায়ের তদন্তের দাবিতে দলের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে আন্দোলন শুরু হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে জেলা পুলিশ সুপার সন্তোষ নিম্বালকার জানান, জেল হেফাজতে থাকা চিকিৎসাধীন বন্দির মৃত্যু হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here