সিএএ ভারতে লাগু হওয়ায় উদ্বেগ বাড়ছে বাংলাদেশে

0
85

হাবিবুর রহমান, ঢাকা: ভারতের বিস্তীর্ণ অঞ্চল জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদ, বিশেষ করে সিএএ-র সঙ্গে জাতীয় নাগরিক পঞ্জিকরণ বিরুদ্ধে। এই আইন কোন শ্রেণীর ওপর কী প্রভাব ফেলবে এবং ভারতে মুসলিম নাগরিকরা কেন এই আইন নিয়ে বিশেষ ভাবে ভাবিত, তা নিয়ে চলছে ভারতজুড়ে বিতর্ক।

ভারতজুড়ে প্রতিবাদের কারণে হারিয়ে যাচ্ছে কর্মসংস্থান, মূল্যবৃদ্ধির মতো গুরুতর বিষয়গুলি। ভারতের জিডিপি তলানিতে। ৪৫ বছরে বেকারত্ব সর্বোচ্চ। বাজার অগ্নিমূল্য। এনআরসি-সিএএ নিয়ে ডামাডোলের মাঝে হারিয়ে গিয়েছে ভারতের অর্থনীতি। এনআরসি ও সিএএ আন্দোলনের সঙ্গে তাই বেকারত্ব নিয়েও পথে নামতে চলেছে বামপন্থী যুব ও ছাত্ররা।

তাঁদের দাবি, এনআরসি নয়, গোটা দেশে চালু হোক এন‌আরবি বা ‘ন্যাশনাল রেজিস্টার অব বেরোজগারি’। এক‌ইভাবে সিএএ এর পরিবর্তে বিএএ বা ‘বেরোজগারি অ্যাবোলিশন অ্যাক্ট’ চালুর দাবি তুলেছেন তারা। আগামী ১০ জানুয়ারি থেকে ফর্ম বিলি করা হবে। জানতে চাওয়া হবে, আপনি বেকার নাকি কর্মরত? কাজ করলে কি ধরনের প্রতিষ্ঠান?দৈনিক আয় কত?

এনআরসি ও সিএএ সংযুক্তিকরণের বিরুদ্ধে ভারতজুড়ে চলছে তীব্র প্রতিবাদ ও সমাবেশ। ভারতের প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশের নাগরিকরা মনে করছেন এটি ভারতের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার। বাংলাদেশের জন্য কোন সমস্যা হবে না। তারপরেও বাংলাদেশের যথেষ্ট উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ রয়েছে। রোহিঙ্গাদের ক্ষেত্রে যে ঘটনা ঘটে গেছে, সেরকম পরিস্থিতি যাতে আর তৈরি না হয়।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন বলেছেন, এ বিষয়ে ভারতের আশ্বাসের প্রতি বাংলাদেশ বিশ্বাস রাখে। এটি ভারতের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার এবং বাংলাদেশের জন্য কোন সমস্যা হবে না। তাই আমরা এ বিষয়ে মন্তব্য করতে চাই না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here