জমি মাফিয়াদের দাপটে কাজ হারিয়ে প্রশাসন ও শ্রমিক সংগঠনের দ্বারস্থ শ্রমিকরা

0
25

ইসলামপুর: জমি মাফিয়াদের দাপটে কাজ হারিয়ে চরম সমস্যার মুখোমুখি একাধিক শ্রমিক। সমস্যা মেটাতে মঙ্গলবার ইসলামপুর বিবেকানন্দ সভাগৃহে অনুষ্ঠিত হলো ত্রিপাক্ষিক বৈঠক।বি এস এফ, ট্রেড ইউনিয়নের নেতৃত্ব এবং লেবার কমিশনারের মধ্যে এই বৈঠক এদিন। চোপড়া থানার ঘিরনীগাঁও গ্রাম পঞ্চায়েতের ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের কুটি চাবাগান নিয়েই মূলত সমস্যার কেন্দ্রবিন্দু।

শ্রমিকরা জানিয়েছেন ২০১৭ সালে কোনরকম নোটিশ না দিয়ে এই বাগানের মালিক বাগান ছেড়ে চলে যায়। এরপর শ্রমিকরা ওই বাগান চালানোর দায়িত্ব নেয়। কিন্তু সম্প্রতি এলাকার জমি মাফিয়া চক্র হস্তক্ষেপ করে সেই বাগানে। তারা শ্রমিকদের কাজ বন্ধ করে দেয় এবং নানানভাবে হুশিয়ারি প্রদর্শন করে। সিটুর জেলা নেতা তথা পশ্চিম দিনাজপুর চা বাগিচা শ্রমিক ইউনিয়নের সম্পাদক স্বপন গুহ নিয়োগী জানান,বাগান চালাতে না পেরে মালিক বাগান ছেড়ে  চলে গেছে কিন্তু বর্তমানে দুষ্কৃতীরা সেখানে ঝামেলা শুরু করেছে।

পাশাপাশি সীমান্তের কাঁটাতারের বেড়ার ওপারে শ্রমিক ওই বাগানে যেতে পারছেন না। অবিলম্বে সমস্যার সমাধান না হলে ধর্নায় বসার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। এদিন সিপিএমের শ্রমিক সংগঠনের পাশাপাশি সেখানে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব ও আইএনটিটিইউসি নেতা অশোক রায়। অশোক রায় বলেন, যারা ওই চা বাগানের মালিকের কাছে জমি বিক্রি করেছিল তারাও এখন মালিকানা দাবি করে ঝামেলা সৃষ্টি করছে।

ফলে কাউকেই আর বাগানে ঢুকতে দিচ্ছে না বিএসএফ। এর জন্যই সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। ইসলামপুর লেবার কমিশনার নওশাদ আলম জানান, এদিন তিনটি শ্রমিক সংগঠনের পাশাপাশি বিএসএফের সঙ্গে একটি বৈঠক হয়। ওই বাগানের মালিক না থাকায় জীবিকার জন্য শ্রমিকরা কাজ করতে চাইছে। তিনি বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে খতিয়ে দেখে যে সমস্ত শ্রমিক ওই বাগানে কাজ করতো তাদের একটি তালিকা তৈরি করে বিএসএফকে দেবেন তবে  বলে জানান তিনি।

এই তালিকা দেখেই বি এস এফ শ্রমিকদের বাগানে ঢুকতে দেবে। ইসলামপুরের ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট তথা ভারপ্রাপ্ত মহকুমা শাসক খুরশেদ আলম  জানান, লেবার কমিশনারকে সামগ্রিক বিষয়টি দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here