করনদীঘিতে ব্যবসায়ী খুনের প্রতিবাদে রাজনৈতিক দল ও ব্যবসায়ী সমিতি

0
233

 

কল্যান ব্যানার্জী, করনদীঘিঃ করনদীঘির প্রাণকেন্দ্রে দোকানে ঢুকে ব্যবসায়ীকে গুলি করে হত্যা ও তার সহকর্মীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানোর প্রতিবাদে সরব হয়েছে রাজনৈতিক দল ও করনদীঘি ব্যবসায়ী সমিতি। মঙ্গলবার বিজেপির জেলা সভাপতি নির্মল দাম, সাধারন সম্পাদক বাসুদেব সরকার, সহসভাপতি নিখিল সরকার, অাব্দুল জলিল সহ অন্যান্যরা মৃত ব্যবসায়ী সুবেশ দাসের বাড়িতে যান। তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।

 

নির্মল দামের নেতৃত্বে করনদীঘি বিজেপি দলীয় কার্যালয় থেকে এক প্রতিবাদ মিছিল সারা করনদীঘি পরিক্রমা করে। বিজেপির এক প্রতিনিধিদল করনদীঘি থানার অাইসি পরিমল সাহার সাথে সাক্ষাৎ করেন। জেলা বিজেপি নেতা নিখিল সরকার জানিয়েছেন, ভর সন্ধ্যাতে নবমীতে দোকানে ঢুকে ব্যবসায়ীকে খুন করল দুস্কৃতিরা।পুলিশকে সাত দিনের সময় দেওয়া হয়েছে, তার মধ্যে অপরাধীরা গ্রেপ্তার না হলে বৃহত্তর অান্দোলন করা হবে।

 

করনদীঘি সহ বিভিন্ন স্থানে মানুষের নিরাপত্তা বলে কিছুই নেই। একেবারে ঢিলেঢালা পুলিশ প্রশাসন চলছে। অার এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে। মানুষের সুরক্ষার জন্য প্রশাসনিক ব্যবস্থা গৃহীত হচ্ছে না। করনদীঘির মানুষ অাতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন। পুলিশকে সদর্থক ভূমিকা নিয়ে মানুষের ভীতি দুর করতে হবে। এদিন দুপুরে উত্তর দিনাজপুর চেম্বার অব কমার্সর সাধারন সম্পাদক শঙ্কর কুন্ডু করনদীঘিতে অাসেন। তিনি করনদীঘি ব্যবসায়ী সমিতির পদাধিকারীদের সাথে কথা বলেন।

 

যেই পোল্ট্রি দোকানে প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী সুবেশ দাসকে গুলি করে হত্যা করা হয় তার সামনে দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, গতকাল সন্ধ্যাতে ব্যবসায়ী সুবেশ দাসকে তার দোকানে ঢুকে গুলি করে হত্যা করে অাততায়ীরা। সেই ব্যবসায়ীর গত সাত জুলাই গোয়ালপুকুর থানা এলাকা থেকে চার লক্ষ তিরিশ হাজার টাকা ছিনতাই হয়। একেবারে দিনের অালোতে গাড়ীর টায়ারে গুলি করে ছিনতাই করা হয়। সেই বিষয়টিতে তিনি গোয়ালপুকুর থানা সহ ইসলামপুর জেলা পুলিশ সুপারকে অভিযোগ জানিয়েছিলেন কিন্তু তার কোন কিনারা করেনি পুলিশ ও পুলিশ সুপার।

 

এর ক’মাসের মধ্যেই তাকে দোকানে ঢুকে হত্যা করল দুস্কৃতিরা। ব্যবসায়ী সহ সাধারন মানুষ ভীষন অাতঙ্কে রয়েছেন। এই ঘটনার শেষ দেখা হবে।করনদীঘি ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক কৌশিক রায় জানিয়েছেন, পুলিশ প্রশাসনকে ৭২ ঘন্টার অাল্টিমেটাম দেওয়া হয়েছে। তার মধ্যে অপরাধীদের গ্রেপ্তার করতে হবে। বুধবার করনদীঘিতে ব্যবসা বন্ধ রেখে ব্যবসায়ী হত্যার প্রতিবাদ জানানো হবে। ৭২ ঘন্টাতে খুনীরা গ্রেপ্তার না হলে জেলা জুড়ে অান্দোলন করা হবে। উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি কানাইয়ালাল অাগরওয়াল এদিন মৃত ব্যবসায়ী সুবেশ দাসের বাড়ীতে যান।

 

তার সাথে ছিলেন করনদীঘির বিধায়ক মনোদেব সিংহ। কানাইয়ালাল অাগরওয়াল সুবেশ দাসের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। তিনি করনদীঘি থানার অাইসি পরিমল সাহার সাথে সাক্ষাৎ করেন। তিনি বলেন, অবিলম্বে এই খুনের ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে পুলিশকে। এই ঘটনার সাথে জড়িত কেউ যেন রেহাই না পায় তা নিশ্চিত করতে হবে। অন্যদিকে, মঙ্গলবার বিকালে মৃত সুবেশ দাসের মৃতদেহ রায়গঞ্জে ময়না তদন্তের পর খিরকিটোলার বাড়ীতে অানা হয়। দোমোহনা শ্মশানে তার শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়।