শিক্ষকের অশ্লীল আচরণের প্রতিবাদ জানিয়ে ব্যাপক ছাত্র বিক্ষোভ রায়গঞ্জে

0
1272

রায়গঞ্জ : এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের অশ্লীল মেসেজ করার অভিযোগ তুলে তুমুল ছাত্র বিক্ষোভের সাক্ষী থাকল রায়গঞ্জ। দীর্ঘদিন ধরে একাধিক ছাত্রীর সাথে হোয়াটসঅ্যাপ, ম্যাসেঞ্জারে আপত্তিকর মন্তব্য এবং নানা অছিলায় গায়ে হাত দেওয়ার অভিযোগ উঠল বিদ্যালয়ের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম বাপী প্রামানিক। এই ঘটনার প্রতিবাদে ও দোষী শিক্ষকের শাস্তির দাবিতে স্কুলে বিক্ষোভ দেখাল ছাত্রছাত্রীরা৷ ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ শহরের কসবা এলাকার কৈলাসচন্দ্র রাধারানী বিদ্যাপীঠে । ঘটনার জেরে ব্যাপক উত্তেজনা ও চাঞ্চল্য দেখা দেয় স্কুল চত্বরে। আন্দোলনকারি ছাত্রীরা অভিযুক্ত শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করার পাশাপাশি ভবিষ্যতে আর কোনও ছাত্রীর সাথে এই ধরনের ঘটনা না ঘটে তারও দাবি করেছেন ছাত্রীরা। যদিও আজ বিদ্যালয়ে পাওয়া যায়নি অভিযুক্ত শিক্ষক বাপী প্রামানিককে। স্কুলের প্রধান শিক্ষক উৎপল দত্ত জানিয়েছেন, ছাত্রীদের অভিযোগ নিয়ে তারা আলোচনায় বসবেন। তবে অভিযোগ প্রমানিত হলে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

রায়গঞ্জ শহরের কৈলাসচন্দ্র রাধারানী বিদ্যাপীঠের ভূগোলের শিক্ষক বাপী প্রামানিক বিদ্যালয়ের বেশ কয়েকজন ছাত্রীকে মোবাইলে হোয়াটসঅ্যাপ আর ম্যাসেঞ্জারে আপত্তিকর পোস্ট করতেন। রাতের বেলায় ছাত্রীদের ভিডিও কল করার অভিযোগও ওঠে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে। একজন শিক্ষকের কাছ থেকে এধরনের মন্তব্য পাওয়ায় ছাত্রীরা স্কুলে এসে ওই শিক্ষককে এসব না করার জন্য সাবধানও করে দিয়েছিল। শুধু হোয়াটসঅ্যাপ বা ম্যাসেঞ্জারে নয়, বাড়িতে প্রাইভেট টিউশনি পড়ানোর নামে নানা অছিলায় ছাত্রীদের শরীরে হাত দেওয়া জরিয়ে ধরার চেষ্টা করতেন বলেও অভিযোগ করেছেন ছাত্রীরা । বারবার বারন করা সত্বেও তিনি এই কাজ করতেন। ছাত্রীদের অভিযোগ অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের এই ধরনের আচরন দিনের পর দিন বেড়েই চলছিল। আজ স্কুলে এসে নির্যাতিতা ছাত্রীরা অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে গর্জে ওঠেন। অভিযুক্ত শিক্ষক বাপী প্রামানিকের শাস্তির দাবিতে এবং বিচার চেয়ে হাতে পোস্টার নিয়ে স্কুলে বিক্ষোভ দেখায় ছাত্রীরা। তাদের এই আন্দোলনের সাথে যোগ দেন বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রীরাও যারা এর আগে ওই শিক্ষকের হাতে একই রকম ব্যবহারের শিকার হয়েছিলেন। বিদ্যালয়ের এই ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা ও চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। এধরনের ঘটনা স্কুলের শিক্ষক করতে পারে তা ভাবতেই পারছেন না বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক উৎপল দত্ত। তিনি জানিয়েছেন ছাত্রীদের পাওয়া অভিযোগের ভিত্তিতে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তবে অভিযোগ প্রমানিত হলে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। যদিও অভিযুক্ত শিক্ষক বাপী প্রামানিকের এদিন স্কুলে না আসার জন্য তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।