পূজার মুখে বেহাল রাস্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন ডুয়ার্স ও পাহাড়ের পর্যটন ব্যবসায়ীরা

0
75

মালবাজারঃ আর মাত্র কয়েক দিন বাকি। আগামী ১৫ ই সেপ্টেম্বর থেকে খুলে যাবে বনের দরজা। ডুয়ার্সে নামবে পর্যটকদের ঢল। পর্যটকদের দ্বিতীয় গন্তব্য পাহাড়ের একাধিক পর্যটন কেন্দ্র। পর্যটকদের আশায় দিন গুনছে পাহাড় ও ডুয়ার্সের হোম স্টে, লজ ও রিসর্টের মালিকরা। কিন্তু, পাহাড়ের রাস্তার পরিকাঠামো নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন সবাই। পাহাড়ের পর্যটন কেন্দ্রগুলির রাস্তার যা হাল তাতে গাড়ি চালকরা যেতে চাইছেন না। প্রশাসন অবশ্য এই বিষয়ে ওয়াকিবহাল।

রাস্তা সংস্কার না হলে প্রভাব পড়বে ব্যবসায়। ঝান্ডি, রিসভ, ডালিমটার, লাভা, লোলেগাও পর্যটন কেন্দ্র গুলি প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরা। স্বাভাবিক ভাবে পর্যটকদের আকর্ষণ করে। ঝান্ডির পর্যটন ব্যবসায়ী রাজেন প্রধান জানান, প্রায় ৬.৪০০ ফুট উচু ঝান্ডি এক পর্যটন কেন্দ্র। ইতিমধ্যেই পর্যটন মানচিত্রে স্থান করে নিয়েছে। কিন্তু চলতি বর্ষায় রাস্তার কঙ্কালসার অবস্থা হয়ে গেছে। স্থানীয় লোকজন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করে। প্রশাসনের গোচরে থাকলেও সংস্কার হয়নি।

স্থানীয় লোকজন নিজেরাই হাত লাগিয়ে ব্যবস্থা করছে। রাস্তার পরিকাঠামো খারাপ থাকলে ঝুঁকি নিয়ে অনেকেই আসতে চাইবে না। এটাই আমাদের ভাবাচ্ছে। গরুবাথান ব্লকে রয়েছে ডালিমটার। গরুবাথান থেকে মাত্র ৮ কিমি দূরে এই পর্যটন কেন্দ্র। এখানে বহু পুরানো এক দূর্গের ধ্বংসাবশেষ রয়েছে। সম্প্রতি সরকারি ভাবে দূর্গের সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে। পর্যটকরা আসেন। কিন্তু, ৮ কিমি রাস্তা অবস্থা ভালো নয়। একাধিক জায়গায় ধস পড়ে বিপজ্জনক হয়ে আছে। স্থানীয়রা খানিকটা সংস্কার করে যাতায়াত করে।

বাইরের গাড়ি চালকরা এই বিপজ্জনক পথে গাড়ি চালাতে সাহস করে না। স্থানীয়রা গাড়ি নিয়ে যাতায়াত করে। স্থানীয় হোম স্টের মালিক দেওপ্রকাশ রাই জানান, রাস্তা ভালো থাকলে পর্যটকরা স্বাভাবিক ভাবে আসতে পারবে। ডালিমখোলা ঝোড়ার উপর ব্রিজ অর্ধ সমাপ্ত হয়ে আছে। রাস্তা ভালো হলে ব্যবসা ভালো হবে। একই রকম ভাবে তোতে, তাংতার হোম স্টের মালিকরা রাস্তার বিষয়ে অভিযোগ করেন। এক হোম স্টের মালিক বলেন, আমাদের হোম স্টে চালানোর বিষয়ে সরকারি ভাবে ট্রেনিং হয়েছে। কিন্তু, রাস্তা খারাপ থাকলে পর্যটকরা আসতে চাইবে না। এই পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বিগ্ন সকল ব্যবসায়ী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here