প্রয়াত বিশিষ্ট আইনজীবী রাম জেঠমালানি

0
246

দিল্লি: দীর্ঘ অসুস্থতার পর আজ সকালে দিল্লির বাসভবনে প্রয়াত হন বিশিষ্ট আইনজীবী রাম জেঠমালানি। তাঁর পুরো নাম রাম বুলচাঁন্দ জেঠমালানি। ১৯২৩ সালের ১৪ই সেপ্টেম্বর ব্রিটিশ ভারতের বোম্বে প্রেসিডেন্সি তথা বর্তমান পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশের শিখারপুরে জন্মগ্রহণ করেন বিশিষ্ট এই আইনজীবী ও সাংসদ।

মৃত্যুকালে রাষ্ট্রীয় জনতা দলের সদস্য থাকলেও ২০১৩ সাল পর্যন্ত তিনি ভারতীয় জনতা পার্টির সদস্য ছিলেন রাম জেঠমালানি। খুব অল্প সময়ের জন্য হলেও ১৯৯৬ সালে অটল বিহারী বাজপেয়ীর সরকারে তিনি আইন এবং সুবিচার মন্ত্রী ছিলেন। এরপর ফের ১৯৯৮ সালে আইনমন্ত্রী ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী এবং ১৯৯৯ সালে আইন এবং সুবিচার মন্ত্রী হিসেবে তিনি অটল বিহারী বাজপেয়ীর নেতৃত্বাধীন সরকারে দায়িত্ব পালন করেন। যদিও পরবর্তীতে তিনি ২০০৪ সালে লখনউ কেন্দ্র থেকে অটল বিহারী বাজপেয়ীর বিরুদ্ধেই লোকসভা ভোটে অবতীর্ণ হন। এরপর ২০১০ সালে রাজস্থান থেকে এবং ২০১৬ সালে বিহার থেকে রাম জেঠমালানি রাজ্যসভার সদস্য হন।

তাঁর ৭৮ বছরের কর্মজীবনে তিনি বহু গুরুত্বপূর্ণ মামলা লড়েছেন। সেগুলোর মধ্যে অন্যতম ইন্দিরা গান্ধীর হত্যা মামলা, যেখানে তিনি ইন্দিরা গান্ধীর হত্যাকারীদের পক্ষ নিয়ে সাওয়াল করেন। রাজীব গান্ধী হত্যা মামলা, এক্ষেত্রেও তিনি মাদ্রাজ হাইকোর্টে তিনি রাজীব গান্ধীর হত্যাকারীদের সমর্থনে মামলা লড়েন। শেয়ারবাজার কেলেঙ্কারির মামলায় হর্ষদ মেহতার পক্ষে লড়েন তিনি। এছাড়াও টু-জি স্পেকট্রাম মামলা, আফজাল গুরুর মৃত্যুদণ্ডের মামলা সহ আরও অনেক বহুচর্চিত মামলায় তিনি আইনজীবী হিসেবে অংশগ্রহণ করেন। এক সময় তিনি সুপ্রিম কোর্টের সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক নেওয়া আইনজীবী ছিলেন।

বিগত বেশ কিছু দিন ধরে বার্ধক্য জনিত রোগে ভুগছিলেন তিনি। রবিবার সকাল ৭:৪৫ মিনিটে তিনি পরলোক গমন করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর। মৃত্যুর পর তিনি রেখে গেলেন তাঁর আইনজীবী পুত্র মহেশ জেঠমালানি এবং কন্যা রানী জেঠমালানিকে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তাঁর মৃত্যুতে টুইটারে শোক প্রকাশ করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here