শ্রীদেবীর হাতের আঙুল স্পর্শ করলেন কন্যা জাহ্নবী

0
647
দেবলীনা ব্যানার্জীঃ বলিউডের স্বপ্নসুন্দরী শ্রীদেবীর আকস্মিক মৃত্যু এখনো মেনে নিতে পারেন না তাঁর পরিবার ও ভক্তকুল। তিনি যে নেই তা এখনো মেনে নিতে কষ্ট হয় সকলের সাথে সাথে বিশেষ করে দুই মেয়ে জাহ্নবী ও খুশির। শ্রীদেবী নিজেও আগে বহুবার বলেছেন বড় মেয়ে জাহ্নবী তাঁকে ছাড়া এক পাও চলতে পারে না।
এখন জাহ্নবী এই প্রজন্মের সবচেয়ে সম্ভাবনাময় নায়িকাদের অন্যতম। আগামী দিনে হয়তো আরো অনেক সাফল্য অপেক্ষা করছে। কিন্তু সেসব নিয়ে আর কখনও মায়ের কাছে ফেরা হবে না,  এই আক্ষেপ রয়েই গেল তার।
গত ৩ সেপ্টেম্বর সিঙ্গাপুরের মাদাম তুসো মিউজিয়ামে শ্রী দেবীর মূর্তির উন্মোচন করা হয়। আর তাই সেই উপলক্ষে বনি কাপুর ও খুশি কাপুরের সঙ্গে সিঙ্গাপুরে উড়ে গিয়েছিলেন জাহ্নবী। বলিউডের মিস ‘হাওয়া হাওয়াই’ এর ৫৬ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে  বসানো হয়েছিল তাঁর মূর্তি।
‘মিস্টার ইন্ডিয়া’ ছবির সেই নাচের দৃশ্যটি অমর হয়ে রয়েছে বাণিজ্যিক বলিউড ছবির জগতে। এরপর থেকে ভক্তরা তাঁদের প্রিয় নায়িকাকে হাওয়াহাওয়াই নামেও ডাকা শুরু করেছিলেন।সেই হাওয়াহাওয়াইয়ের  অনুকরণেই গড়া হয়েছে মূর্তি। ওই ছবির প্রযোজক ছিলেন বনি কাপুর এবং পরিচালক শেখর কাপুর।
বনি কাপুর, খুশি এবং জাহ্নবী ছাড়াও বনির ছোট ভাই সঞ্জয় কাপুর এবং তাঁর স্ত্রীও উপস্থিত ছিলেন সেই অনুষ্ঠানে।সঞ্জয়ই নিজের সোশ্যাল অ্যাকাউন্ট এ শ্রীদেবী অনুরাগীদের সাথে এই অনুষ্ঠানের ছবি শেয়ার করেছেন। তিনি বলেন, শ্রীদেবী আজীবন আমাদের কাছে অমর থাকবেন।
অভিনেত্রীর অন্যতম জনপ্রিয় ছবি ‘মিস্টার ইন্ডিয়া’-র ‘হাওয়া হাওয়াই’ রুপে মূর্তি স্থাপন করা হয়েছে। ছবির এই আইকনিক সং-টি আজও দর্শকদের মুখে শোনা যায়। সবাই যখন মূর্তি উন্মোচনের পর অন্যান্য দিকে ব্যস্ত, তখন হঠাৎই  মায়ের প্রিয় কন্যা জাহ্নবীকে দেখা গেল মুর্তির হাত স্পর্শ করতে। মায়ের কাছে ফেরা তো আর সম্ভব নয়, এভাবেই মায়ের সান্নিধ্য পাওয়ার চেষ্টা করলেন জাহ্নবী।