অনুমতিহীন বিজেপির র‍্যালি ঘিরে উত্তেজনা

0
116
মালবাজারঃ অনুমতি ছাড়াই র‍্যালি বার করেছিল বিজেপির মেটেলি ব্লকের সমতল মন্ডলের যুব মোর্চার কর্মীরা। বাতাবাড়ি ফার্ম মোরের কাছে পুলিশ তা আটকে দেয়। এনিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে খানিক উত্তেজনা ছড়ায় মেটেলি ব্লকের বাতাবাড়ি ফার্ম মোর এলাকায়। পরে র‍্যালিতে অংশ নেওয়া কর্মীরা ফিরে গেলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা ও ৩৫ এর এ ধারা বাতিলের সমর্থনে বিজেপির মেটেলি ব্লকের সমতল মন্ডলের যুব মোর্চার কর্মীরা এক বাইক র‍্যালি বের করার পরিকল্পনা নেয়।
সেই যুব মোর্চার কর্মীরা বাতাবাড়িতে তাদের দলীয় অফিসে সমবেত হয়। তারপর র‍্যালি বের করে। র‍্যালি বাতাবাড়ি ফার্ম মোরের কাছে এলে পুলিশ তা আটকে দেয়। উপস্থিত ছিলেন এসডিপিও দেবাশীষ চক্রবর্তী, সি আই আশীষ থাপা, মেটেলি থানার ওসি প্রবীর দত্ত, নাগরাকাটা থানার ওসি শুভাশিস চক্রবর্তী, মাল থানার ওসি অসীম মজুমদার সহ বিশাল পুলিশ বাহিনী। পুলিশ র‍্যালি আটকে দিলে সাময়িক উত্তেজনা সৃষ্ঠি হয়। সেই সময় এসডিপিও দেবাশীষ চক্রবর্তী পরিস্কার ঘোষণা করে বলেন, আপনাদের অনুমোতি ছিল না।
তাই বেআইনি র‍্যালি বের করার জন্য পুলিশ আপনাদের গ্রেপ্তার করেছে। সার্বিক পরিস্থিতির কথা চিন্তা করে ও আপনাদের সন্মানের জন্য ছেরে দেওয়া হলো। এরপর কর্মীরা সবাই ফিরে যায়। বিজেপির সমতল মন্ডলের যুব মোর্চার সভাপতি দুলাল সোরেন, ৩৭০ ও ৩৫ এর এ ধারা বাতিলের দাবী আমাদের বহু পুরানো দাবি। সম্প্রতি কেন্দ্রের বিজেপি সরকার সেই দাবির মান্যতা দিয়ে ওই ধারা বাতিল করেছে। দেশ বাসীর কাছে এটা একটা সুখবর। তাই আমরা আজ শান্তিপুর্ন ভাবে একটি র‍্যালি বের করি। এই ধারা কেন বাতিল করা হয়েছে?
সেই বার্তা মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে এই কর্মসূচি নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের ধামাধরা পুলিশ আমাদের র‍্যালি আটকে দেয়। এটা গণতান্ত্রিক কর্মসূচিতে পুলিশের হস্তক্ষেপ। আগামীদিনে মানুষ এর জবাব দেবে মাল মহকুমা পুলিশ আধিকারিক দেবাশীষ চক্রবর্তী বলেন, র‍্যালির অনুমতি ছিলো না তাই নিরপত্তার কারণে আটকে দেওয়া হয়েছে।