উত্তরবঙ্গ মেডিকেলে আজও অচলাবস্থা, চরম হয়রানির মুখে রোগীরা

0
99

শ্রেয়সী কুণ্ডু, শিলিগুড়ি: রাজ্যজুড়ে ডাক্তারদের ধর্মঘটের জেরে উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে বুধবারের পর আজ বৃহস্পতিবার চরম হয়রানির মুখে পড়ছেন রোগী ও তাঁর পরিবারের লোকেরা। এদিন সকাল থেকেই মেডিকেলের আউটডোরের সামনে রোগী এবং তাঁর পরিজনদের দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। টিকিট কাউন্টার সকাল ১০টা পর্যন্ত বন্ধ থাকে।

এদিকে হাসপাতালে ন্যায্য মূল্যের ওষুধের দোকানের ঝাঁপ নামানো থাকায় রোগীর পরিজনেরা ওষুধ সংগ্রহ করতে এসে বিপাকে পড়ছেন। বাধ্য হয়ে তাঁদের বাইরে থেকে বেশি দামে ওষুধ সংগ্রহ করতে হচ্ছে। দোকান থেকে এক বেলা ছুটি নিয়ে হাসপাতালে এসে পরিষেবা না পেয়ে ফিরে যেতে হচ্ছে রোগী ও তাঁদের পরিজনদের। অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, একদিন দোকানে না গেলে মজুরি কেটে দেওয়া হয়।

কিন্তু হাসপাতালের কর্মী এবং চিকিৎসকেরা একদিন কাজ না করলেও মোটা মাইনে পেয়ে যান। তাই এই ধরনের অন্যায় অবিচার তাঁদের সঙ্গে করা ঠিক হচ্ছে না। হাসপাতালে পরিষেবা না পেয়ে বাধ্য হয়েই অনেকেই বেসরকারি ল্যাবে কিংবা নার্সিংহোমের দিকে যাচ্ছেন। সেই সুযোগে কেউ কেউ বেশি মুনাফা লুটতে অতিরিক্ত টাকা ধার্য করেছে। এই নিয়ে সকাল থেকেই হাসপাতালের সুপারের ঘরের সামনে কয়েকশো রোগীর পরিজন তুমুল বিক্ষোভ শুরু করছেন।

পরিস্থিতি সামাল দিতে উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে চলে আসে। মহিলা পুলিশকেও ঘটনাস্থলে নিয়ে আসা হয়। হাসপাতালে কর্মীদের সঙ্গে একাংশ রোগীর আত্মীয়দের বচসা শুরু হয়। যদিও জুনিয়ার ডাক্তাররা জানিয়েছেন, এনআরএস কাণ্ডের প্রকৃত বিচার না পাওয়া পর্যন্ত তাঁদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। পাশাপাশি গতকালের মতো আজকেও তাঁরা ক্যাম্পাসে ন্যায় বিচারের দাবীতে অবস্থানে বসেছেন।

হাসপাতালের মতো জরুরি পরিষেবা বন্ধ করে রেখে এই আন্দোলনকে কোনভাবেই সমর্থন জানাচ্ছেন না চিকিৎসকদের একাংশও। তাঁরাও রাজ্য সরকারের হস্তক্ষেপ দাবি করেছেন। উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের সুপার কৌশিক সমাজদার জানিয়েছেন, ইনডোর পরিষেবায় কোনওরকম প্রভাব পড়ছে না। আউটডোর পরিষেবা স্বাভাবিক করার জন্য চেষ্টা চলছে। এদিকে বুধবারের মতো বৃহস্পতিবারেও মেডিকেলের বিভিন্ন আউটডোর বিভাগ বেলা পর্যন্ত তালা বন্ধ অবস্থায় রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here