”পন্ডিত বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙচুর আদপে বাংলা ভাষার উপর আক্রমণ” টুইট করলেন মহেশ ভাট

0
278

দেবলীনা ব্যানার্জীঃ বুধবার ছিল বিদ্যাসাগর বন্দনার দিন এবং প্রতিবাদের মুঠি আকাশে তোলার দিন। বিদ্যাসাগরকে নিয়ে রবীন্দ্রনাথ কী লিখেছিলেন, তাঁকে নিয়ে কী কী কবিতা লেখা হয়েছে, তাঁর চরিত্রের দৃঢ়তা, তাঁর কুসুমহৃদয়, তাঁর উত্তাল দামোদর পার হওয়ার কাহিনি বারবার ফিরে এসেছে বাঙালির স্মৃতিতে। কোথাও তাঁর মূর্তি চেয়ারে বসিয়ে জ্বালানো হয়েছে প্রতিবাদের আগুন। সর্বত্র ধিক্কার-ধ্বনি উঠেছে। সবারই দাবি, অপরাধীকে খুঁজে বের করে শাস্তি দেওয়া হোক। বাংলার শিক্ষা-সংস্কৃতি-ঐতিহ্যের উপর আক্রমণের তীব্র নিন্দা করে বিবৃতি দিয়েছেন অবসরপ্রাপ্ত আইএএস অফিসার অমিতকিরণ দেব, জহর সরকার, অর্ধেন্দু সেন, সুখবিলাস বর্মা, মানব রায় ও সুনীল মিত্র।

সব রাজনৈতিক দলই বুধবার প্রতিবাদ-মিছিল বের করেছে।সমাজের সর্বস্তরের মানুষ কখনও রাজনৈতিক দলের ব্যানারে, কখনও রাজনীতি-নিরপেক্ষ ভাবে প্রতিবাদে সামিল হয়েছে।ঘটনা ঘিরে একে অপরের দিকে আঙুল তুলতে ব্যস্ত তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপি। মূর্তি ভাঙার ঘটনায় বিজেপিকে একহাত নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবারই শহরের রাস্তায় প্রতিবাদ মিছিল বের করার কথা জানিয়েছে তৃণমূল। অন্যদিকে, পুরো ঘটনায় তৃণমূলেরই হাত রয়েছে বলে পাল্টা তোপ দেগেছেন বিজেপি নেতা অমিত শাহ। নিন্দায় মুখর হয়েছেন বিদ্বজনেরা।

ঘটনার আঁচ গিয়ে পড়েছে ভিনরাজ্যেও। বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন পরিচালক মহেশ ভাট। টুইটারে মহেশ ভাট লিখেছেন, ” বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনা আদপে বাংলা ভাষার উপর আক্রমণ। বর্ণপরিচয়ের মাধ্যমে বিদ্যাসাগরই প্রথম বাংলাভাষাকে আরও অনেকটা সহজ সরল করে তুলেছিলেন।” বিদ্যাসাগর কলেজে বিদ্যাসাগরের আবক্ষ মূর্তি ভেঙে চূরমার করে ভাঙা মূর্তি পায়ে মাড়িয়েই চলেছে তাণ্ডব। বর্ণপরিচয়ের শ্রষ্ঠার মূর্তি আছড়ে ভেঙে কী বার্তা দেওয়া হল? বিদ্যাসগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনায় সরব হয়েছেন এরাজ্যের বুদ্ধিজীবীরাও। উঠছে নানা প্রশ্ন। চলছে কাটা-ছেঁড়া। খতিয়ে দেখা হচ্ছে সিসিটিভি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here