যেখানে সারা বিশ্ব খুঁতগুলো ঢেকে নিখুঁতভাবে নিজেকে উপস্থাপন করতে ব্যস্ত সেখানে এই নারী নিজের ক্ষতকে সামনে এনে সৌন্দর্যের অনন্য নজির গড়লেন

0
541

দেবলীনা ব্যানার্জীঃ নারীর সৌন্দর্যের প্রকৃত সংজ্ঞা কি? মানুষ আদতে সৌন্দর্যের পূজারী। আর নারী সৌন্দর্যের প্রতীক। তাই তো এত বেশভূষা, এত মেক আপের সম্ভার। মেক আপের সাহায্যে নিজের খুঁত গুলো ঢেকে নিখুঁত ভাবে নিজেকে উপস্থাপন করতে আগ্রহী বিশ্বের সমস্ত নারী। কিন্তু সত্যিই কি তাই? যদি কোনো নারী নিজের খুঁতটাকেই জনসমক্ষে তুলে ধরেন।

সেই সাহসিনীর খুঁতটাই তখন হয়ে ওঠে তার সৌন্দর্যের প্রতীক। কিছুদিন আগেই তাহিরা কাশ্যপ নিজের পিঠের কাটা দাগ নিয়ে জনসমক্ষে হাজির হয়েছিলেন।আর এবার ভোগ ম্যাগাজিনের কভার শ্যুটের ছবি শেয়ার করলেন সোনালি বেন্দ্রে। কেমোর রেশ কাটিয়ে মাথায় এখন অল্প অল্প চুল।

সুন্দর হতে যে এক ঢাল পিঠ ছাপানো চুলের প্রয়োজন পড়ে না তাও প্রমাণ করে দিলেন সোনালি। ছবিতে তাঁকে প্রায় মেকআপহীন অবস্থায় ও নিজের ক্ষত না লুকিয়ে সৌন্দর্যের নতুন সংজ্ঞা লিখতে দেখা গিয়েছে। সাহসী ছবিতে দেখা যাচ্ছে পেটের ২০ ইঞ্চি কাটা দাগ।যে দাগ তার জীবনে মারণ রোগ ক্যানসারের উপহার।

সাহসের পরিচয় তিনি আগেও দিয়েছেন ৷ এক সময় যিনি দেশের সমস্ত হেয়ার কেয়ার ব্র্যান্ডের হয়ে বিজ্ঞাপন করেছেন, যাঁর কাছে কাঁধ ছাপানো ঘন-কালো চুলই ছিল সবচেয়ে পছন্দের, ন্যাড়া হতে হয়েছে তাঁকে ৷ সারা জীবন ডায়েট আর শরীরচর্চার মধ্যে থেকেও যাঁর জীবনে থাবা বসিয়েছে ক্যান্সার তাঁকে অসুন্দর জীবনকেও স্বীকার করে নিতে হয়েছে ৷

 

গ্ল্যামার ভালবাসতেন সোনালি বেন্দ্রে, কিন্তু একটা সময় অসুন্দরকেই স্বীকার করে নিতে শিখতে হল তাঁকে৷ ক্যানসার ধরা পড়ার দিন থেকে ক্যানসারকে হারিয়ে মুম্বইয়ে নিজের বাড়ি ফিরে আসা—প্রত্যেক মুহূর্ত এক অসাধারণ সাবলীলতায় তুলে ধরেছেন কখনও ট্যুইটারে আবার কখনও ইনস্টাগ্রামে।

তিনি বারবার প্রমাণ করেছেন মনের জোর এবং ইচ্ছের জোর থাকলে কোনও কিছুই অসম্ভব নয়।এই মনের জোরের উপর ভর করেই তো ক্যানসারকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে ফিরে এসেছেন এই বলি সুন্দরী। শুধু লড়াই নয়, মারণ রোগের বিরুদ্ধে জিততে গেলে দরকার সাহসও৷ সেই সাহসের পরিচয় দিলেন সাম্প্রতিক এই ছবিটাতে৷ যেখানে প্রায় ন্যাড়া মাথা সোনালি, প্রায় নো-মেকআপলুক৷

কিন্তু তবু ঠিকরে বেরচ্ছে আত্মবিশ্বাস, সাহস, মনোবল আর জেদ৷  ছবিতে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে তাঁর পেটের ২০ ইঞ্চি লম্বা কাটা দাগ৷ মারণ রোগের সঙ্গে সঙ্গে এই চিহ্নগুলোও জড়িয়ে গিয়েছে তাঁর জীবনের সঙ্গে৷ নারী দিবসের প্রাক্কালে নিজের ক্ষত প্রকাশ্যে এনে সৌন্দর্যের অনন্য নজির গড়লেন সোনালি।