রায়গঞ্জের বুকে লজ্জার ঘটনা,মা মৃত অবস্থায় ঘরে,সন্তানরা ব্যস্ত জায়গা ভাগ করতে

0
105

রায়গঞ্জঃ মা মারা গেছেন ভোর রাতে, দুপুর ২ টা বেজে গেলেও মৃতদেহ হাসপাতাল নিয়ে যাওয়া বা চিকিৎসক দেখানো অথবা মায়ের শেষ কাজের জন্য কোনো হেলদোল নেই তিন সন্তান সহ আত্মীদের। মায়ের দেহ ফেলে রেখে সন্তানরা জমি জমা মাপার কাজেই ব্যস্ত। মৃত দেহ সেভাবেই ঘরে পড়ে থাকলো কাপড় ঢাকা দিয়ে। ঘটনা শুনে ছুটে আসে পঞ্চায়েত সদস্য ও পুলিশ।


রায়গঞ্জ শহর লাগোয়া সোহারই মোড় এলাকার এহেন ঘটনা শুনে লজ্জায় মুখ ঢেকেছে রায়গঞ্জ সহ উত্তর দিনাজপুর।
বুধবার রায়গঞ্জ শহর লাগোয়া সোহারই মোড় এলাকায় মায়ের মরদেহ ঘরে ফেলে জমি মাপার ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ালো।

মৃত প্রাথমিক শিক্ষকের স্ত্রী নিয়তী দত্তর নিথর দেহ ঘরে ফেলে রেখে জমি জমা মাপের কাজে ব্যস্ত থাকলো ছেলে। জানা গেছে নিয়তী দত্তের স্বামী ৭ মাস আগে মারা গেছেন,নিয়তী দেবী অসুস্থ অবস্থায় মেয়ে স্বপ্না দত্তের কাছেই থাকতেন। পাশেই থাকেন নিয়তী দেবীর দুই পুত্র সন্তান আশীষ ও কমল দত্ত।

বুধবার সকালে মেয়ে জোৎস্না দত্ত দেখতে পান মা নিথর হয়ে বিছানায় পড়ে আছে। খবর দেয় পড়শি ও ভাইদের। সকলেই জানান মা আর নেই। চিকিৎসা শাস্ত্র ও ভারতীয় আইন মোতাবেক একমাত্র রেজিষ্ট্রার্ড চিকিৎসকই পারেন যে কোনো ব্যক্তিকে মৃত ঘোষণা করতে সেই মোতাবেক কোনো ডাক্তারকে ডাকে নি নিয়তী দেবীর ৩ সন্তান।

অভিযোগ তড়িঘড়ি লেবার, আমিন ডেকে জমি জমা মাপঝোঁক করে সীমানা খুঁটি লাগাতে শুরু করেছে ২ ভাই। ভাইদের পাল্টা অভিযোগ বোন মাকে চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে যেতে দেয়নি। এইসব অভিযোগ পাল্টা অভিযোগ চলতে থাকে দুপুর ২ টা পর্যন্ত এর মধ্যে খবর পেয়ে ছুটে আসে পুলিশ ও প্রশাসন।


কিন্তু সভ্য সমাজে এক মায়ের নিথর দেহ এই ভাবে পড়ে থাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়, লজ্জায় মুখ ঢেকেছে সভ্য সমাজ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here