আবেদন জানিয়ে কাজ না হওয়ায় হেমতাবাদে রাস্তা তৈরি করলেন শিক্ষক ও স্থানীয়রা

0
172

মৃন্ময় বসাক, হেমতাবাদঃ স্থানীয় প্রশাসনের কাছে রাস্তা তৈরির আবেদন জানিয়ে কাজ না হওয়ায় অবশেষে বেতনের টাকা দিয়ে রাস্তায় মাটি ভরাট করে কোদাল হাতে রাস্তা তৈরি করলেন শিক্ষক ও স্থানীয়রা। জানা গেছে হেমতাবাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের সোনাবান্দ এলাকায় সাত শিক্ষক সহ প্রায় পঞ্চাশ টি পরিবার বসবাস করে প্রায় আট বছর ধরে।

এখনো ওই এলাকায় চলাচলের জন্য কোনো পাকা রাস্তা নেই। ফলে বর্ষার দিনে জল কাদা দিয়েই চলাচল করে সোনাবান্দ সহ বারইবাড়ি, সেনপাড়া, মিলনপাড়ার প্রায় দুই শতাধিক পরিবারের লোকেরা। প্রশাসনের কাছে আবেদন জানিয়ে কাজ না হওয়ায় এলাকার শিক্ষকদের উদ্যোগে চাঁদা তুলে প্রায় ৩০০ মিটার রাস্তা মাটি ভরাট করা হচ্ছে। এক সপ্তাহ ধরে কোদাল, ডালি হাতে রাস্তা তৈরি করছেন শিক্ষকদের পাশাপাশি স্থানীয়রা।

সন্তোরা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক গজেন্দ্র নাথ বর্মন বলেন, এলাকায় পাকা রাস্তা না থাকায় চলাচলের সমস্যা হয়। বৃষ্টি পড়লে কাদা হয়ে যায়। স্কুল, কলেজ, কর্মস্থলে যেতে সমস্যা হয়। রাস্তার জমা জল থেকে মশার উপদ্রব বেড়ে যায়। প্রশাসনকে বহুবার আবেদন জানিয়ে কাজ না হওয়ায় নিজেরাই রাস্তা তৈরির কাজ করছি।

টিটিহি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক পরেশ চন্দ্র রায় বলেন, এই রাস্তা দিয়ে সোনাবান্দ সহ আশেপাশের গ্রামের তিনশো পরিবারের লোকেরা যাতায়াত করে। কিন্তু প্রশাসন রাস্তা তৈরিতে উদ্যোগ নিচ্ছে না। তাই শিক্ষকরা মিলেই রাস্তায় মাটি ফেলে নিজেরাই রাস্তা তৈরি করছি। সকালে কাজ করে স্কুল যাচ্ছি আবার স্কুল থেকে এসে আবার কাজ করছি। আমাদের এই কাজ দেখে যদি প্রশাসন সহযোগিতা করে তবে আমরা উপকৃত হবো।

এই বিষয়ে হেমতাবাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের কর্মধক্ষ আশরাফুল আলী বলেন, আমাদের পঞ্চায়েতের ওই রাস্তার রেকর্ড এখনো হয়নি। এলাকাবাসীরা আবেদন জানিয়েছে রাস্তা তৈরির। আমরা গ্রাম পঞ্চায়েতে আলোচনার পর রাস্তা তৈরির উদ্যোগ নিবো।