একাধিক বিদ্যালয়ের শ্রেণী কক্ষ জলমগ্ন, পঠন পাঠন বিপর্যস্ত ইসলামপুরে

0
169
সুশান্ত নন্দী, ইসলামপুর : লাগাতার বর্ষণে জলবন্দি একাধিক বিদ্যালয়। কোনও বিদ্যালয় চত্বরে হাঁটু জল আবার কোনও বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষ জলমগ্ন। ইসলামপুর ব্লকের একাধিক বিদ্যালয়ে এই চিত্র। এর জেরে শিশু শিক্ষা কেন্দ্র কিংবা প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে শুরু করে হাই স্কুল গুলোর পঠন পাঠন রীতিমতন বিপর্যস্ত।জল নিচের দিকে নামতে নামতেই লাগাতার বৃষ্টির জেরে আবার জল ঢুকে পড়ছে সে সব এলাকাগুলিতে।
চরম উদ্বেগের মধ্যে রয়েছেন বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকারা। অনেক অভিভাবকরাই এর জন্য জন্য শিশুদের বিদ্যালয়ে পাঠাতে আগ্রহী হচ্ছেন না। কারণ শুধু বিদ্যালয়ে প্রবেশ করতে বা বের হতেই নয় বরং জল পেলেই পড়ুয়ারা জল নিয়ে খেলায় মেতে উঠছে। এর জন্য অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েছে। ইসলামপুর ব্লকের শহর কিংবা গ্রাম কোথাও তেমন ভাবে নিকাশি ব্যবস্থা না থাকার জন্য জল দাঁড়িয়ে রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে।
আর এর মাশুল গুনতে হচ্ছে পড়ুয়াদের পাশাপাশি শিক্ষক-শিক্ষিকাদের। বিদ্যালয়ে এর জন্য বন্ধ রয়েছে খেলাধুলা কিংবা টিফিনের বিরতিও। শিক্ষক-শিক্ষিকাদের সম্পূর্ণভাবে সব সময় সতর্ক থাকতে হচ্ছে। আদৌ কবে আবহাওয়ার পরিবর্তন হয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে তা জানা নেই কারোর। ইসলামপুরের লোকনাথ নগর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবস্থা একদম জলমগ্ন। ক্লাসরুমে ঢুকে পড়েছে জল। এর জন্য অভিভাবকরা কোন পড়ুয়াকে স্কুলে পাঠাচ্ছে না। ফলে শিক্ষক-শিক্ষিকারা শুধুমাত্র যাতায়াত করছেন।
যাদের জন্য স্কুল ওরাই নেই।  ফি বছর বর্ষায় প্রায় একমাস বিদ্যালয়ে জল থাকায় পঠন-পাঠন বিপর্যস্ত থাকে। সমস্যার কথা উর্ধতন কতৃপক্ষকে জানালেও তারা এই সমস্যার সমাধান খুঁজে পায়নি বলে জানান প্রধান শিক্ষিকা অনন্যা পাল। অন্যদিকে স্থানীয় ক্ষুদিরাম পল্লি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ক্ষুদিরাম পল্লি সুকান্ত স্মৃতি বিদ্যাপীঠ, রেলকলোনি প্রাথমিক বিদ্যালয় সহ একাধিক বিদ্যালয় জলমগ্ন। হাঁটু জল পেরিয়ে অনেক বিদ্যালয়ে চলছে পঠন পাঠন। রামকৃষ্ণ পল্লী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অস্থায়ী চাল ভেঙে জল ঢুকে পড়েছে ক্লাসে। পঠন পাঠনের উন্নয়নে পরিকাঠামো ঠিক করবার জোরালো দাবি তুলেছেন অভিভাবকরা।